কনডমের সূত্র ধরে স্ত্রীকে হত্যা, দায় স্বীকার স্বামীর

Share this...
Print this pageShare on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

স্ত্রীর ভ্যানিটিব্যাগ তল্লাশী করে জন্মনিরোধক (কনড) দেখতে পায় স্বামী। এ নিয়ে শুরু হয় তর্কবিতর্ক। এমন তর্কের রেশ ধরেই স্ত্রী রুমানা আক্তারকে কুপিয়ে ও জবাই করে খুন করে স্বামী রাজু আহম্মেদ।

১৬৪ ধারায় আদালতে এমনই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন ফতুল্লার দেলপাড়া এলাকার স্ত্রী রুমানার ঘাতক স্বামী রাজু। মঙ্গলবার (১৫ মে) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আশেক ইমামের আদালতে তাঁর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয় বলে বুধবার (১৬ মে) এর সত্যতা স্বীকার করেন কোর্ট পুলিশের এসআই হানিফ মিয়া।

জবানবন্দির বরাত দিয়ে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, হত্যার আগের দিন রুমানা আক্তারের ভ্যানেটিব্যাগ তল্লাশী করে জন্মনিরোধক (কনডম) দেখতে পায় রাজু। এনিয়ে শুরু হয় তর্ক-বিতর্ক। এক পর্যায়ে রুমানা তাঁর বাবার বাড়ি চলে যায়। পরের দিন রাতে ফের স্বামীর বাড়িতে আসলে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে একই প্রসঙ্গ নিয়ে আবারও তর্ক হয়। এক পর্যায়ে রুমানাকে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে রাজু। এরপর আশপাশের লোকজন ছুটে এসে রুমানাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

মামলার তদন্তকারি অফিসার এসআই আমিনুল ইসলাম জানান, পরকীয়া সন্দেহে রাজু তার স্ত্রী রুমানাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে বলে আদালতে জবানবন্দি দিয়ে দায় স্বীকার করেছে। এঘটনায় আরো তদন্ত চলছে।

প্রসঙ্গত, ১৩ মে সোমবার সকালে ফতুল্লার পশ্চিম দেলপাড়া এলাকার আহসান উল্লাহর ভাড়াটিয়া বাসায় রাজু আহমেদ তার স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। ৮বছর পূর্বে রুমানা ও রাজুর বিয়ে দেয়া হয়। তাদের সাত বছর বয়সের একটি পুত্র সন্তান আছে।

Share this...
Print this pageShare on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *