দেড়শতাধিক নেতাকর্মী আটক: রিজভী

গত মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) ও আজ বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) ঢাকাসহ সারাদেশে বিএনপির দেড়শতাধিক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এছাড়া দলের ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ বীর বিক্রম এর বনানীর বাসভবন ঘেরাও করে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বুধবার বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ তুলে ধরেন তিনি।

রিজভী বলেন, ‘আজ বুধবার কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি ‘প্রতীকি অনশন’-কে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে। খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে বিএনপির অনশন কর্মসূচি শুরু ও শেষের সময় রাস্তা অবরোধ করে পুলিশ নেতাকর্মীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে এবং তাদের নির্বিচারে গ্রেফতার করেছে।’

রিজভী জানান, ঢাকায় ১০৭ জন এবং গতকাল (মঙ্গলবার) থেকে দেশব্যাপী ৪৪ জনসহ মোট ১৫১ জনের অধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের বিষয়ে রিজভী আহমেদের দাবি, ‘বিরোধী দলকে দমনে এক নতুন ফন্দি অবলম্বন করেছে পুলিশ। বিএনপি’র কর্মসূচির মৌখিক অনুমতি দেওয়ার পরও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির ওপর পুলিশকে লেলিয়ে দিয়ে নোতকর্মীদের গ্রেফতারের এক নতুন স্ট্র্যাটেজি অবলম্বন করেছে সরকার। অর্থাৎ অনুমতির কথা শুনে নেতাকর্মীরা নির্দিষ্ট সময়ে কর্মসূচির জন্য এক জায়গায় জড়ো হবে, আর সেই সুযোগ পুলিশ অনায়াসে তাদের ধরতে পারবে। এটি বিএনপি নেতাকর্মীদের ধরতে পুলিশের একটি নতুন ফাঁদ।’

সংবাদ সম্মেলনে এই বিএনপি নেতা জানান, বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দিন আহমদের বনানীর বাসভবন সকাল থেকে পুলিশ অবরুদ্ধ করে রেখেছে। তবে এ রেপোর্ট লেখা পর্যন্ত বুধবার সন্ধ্যায় এ বিষয়ে বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল পর্যায়ে ফোন করে জানতে চাওয়া হলে, কারও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

রিজভী জানান, নরসিংদীতে ১০টি, রাজশাহীতে পাঁচটি, বগুড়ায় ছয়টি, নেত্রকোনায় পাঁচটি, ময়মনসিংহে ছয়টি, চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুটি, নারায়ণগঞ্জে সাতটি, টাঙ্গাইলে দুটিসহ সর্বমোট চার হাজার মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে। গত ৪ সেপ্টেম্বর হতে গতকাল পর্যন্ত এই জেলাগুলোতে ১৯৬ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত আট দিনে রাজশাহী মহানগরে চারটি, গাজীপুর মহানগরে ১১টি, রংপুর মহানগরে সাতটি, খুলনা মহানগরে ১৩টি মামলায় মোট ৭৮৮ জনকে আসামি করা হয়েছে, গ্রেফতার করা হয়েছে ১৫৩ জনকে।

তিনি জানান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মোহাম্মদ শাহজাদা মিয়া, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ইয়াসমিন আরা হকসহ ১০৫ জনের অধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর উত্তর উত্তরা পশ্চিম থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গায় চারটি মামলায় ৪০০ জনের অধিক বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলায় চার হাজারের অধিক অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধেও মামলা দেওয়া হয়েছে।

Editor

facebook.com/msamadmatin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *