আমজাদ হোসেন কামালের স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমল্য 

বলেন সরকারের উন্নয়নের জোয়ারে, শ্রমিকের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি: এড. মাহবুবুর রহমান ইসমাইল 

গার্মেণ্টস শ্রমিক অভ্যুত্থান দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেণ্টস শ্রমিক ফেডারেশন এর উদ্যোগে শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শ্রমিক নেতা এড. মাহবুবুর রহমান ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কমরেড মাহমুদ হোসেন, জেলা শাখার শ্রমিক নেতা আল-আমিন, হেলিম সরদার, সুমন হাওলাদার, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হাসান নান্নু ও অঞ্জন রায়। সমাবেশে সভাপতিত¦ করেন হেলিম সরদার। ২০০৩ সালে ৮ ঘণ্টা কর্মদিমস ও ১৮ দফা দাবীতে ফতুল্লা বিসিকে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছিলেন আমজাদ হোসেন কামাল এবং শতাধিক আহত হয়েছিল। শহিদ কামাল হোসেন এর বুকের রক্তে পথ বেয়ে আজ ঢাকা গাজীপুর, সাভার, আশুলিয়া শ্রমিকদের মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে।
সমাবেশে প্রধান অতিথি এড. ইসমাইল বলেন, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় উনøয়নের বড়-বড় কথা প্রচার করে চলছে। বড় বড় প্রকল্পের নামে দূর্নীতিবাজ ব্যবসায়ীরা মুনাফার পাহাড় গড়েছেন, যাদের অধিকাংশ পুঁজি বিদেশে পাঁচার হয়ে গেছে। উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ চলতি বছর ৪ লাখ কোটি টাকার বিরাট অংকের জাতীয় বাজেট ঘোষিত হলো। চাল, ডাল, তেল সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেলো, শ্রমজীবি মানুষের কতটুকু লাভ হলো ? যে শ্রমিক মাথার ঘাম পায়ে ফেলে, হাড়-ভাঙ্গা খাটুনি দিয়ে উৎপাদন করে চলছে। সরকারের এই উন্নয়নে শ্রমিকের মাথা গোজার ঠাই হল কী ? লক্ষ কোটি টাকার খরচ শত শত হাজার হাজার প্রকল্প তৈরি হলেও শ্রমিকদের আবাসনের কোন প্রকল্প নেয়া হয়নি। শ্রমিকেরা তার পরিবার পরিজন নিয়ে ঝুপড়ি বস্তিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করছে। লক্ষ কোটি শ্রমিক সন্তানেরা হয়ে পড়েছে সুবিধা বঞ্চিত। তাদের শিক্ষা জীবন অনিশ্চিত।  জাতীয় বাজেটের টাকা খরচ বাড়িয়ে আর্মি পুলিশের রেশনিং প্রদান করা হয়। অথচ শ্রমিকদের জন্য কোন রেশনিং এর ব্যবস্থা নেই যার কারণে দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধি পেলে শ্রমিকেরা দিশেহারা হয়ে যায়।
শ্রমিকেরা আজ ট্রেড ইউনিয়নের অধিকার থেকে বঞ্চিত। গার্মেণ্টস কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন গঠন করলে শ্রমিকের চাকুরি চলে যায়। কথা বলার অপরাধে বহু শ্রমিক মিথ্যা মামলা ও জেলে আটক হওয়ার ঘটন কারও অজানা নয়।
ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ করে প্রকল্পের নামে দূর্নীতি করে যারা বিদেশে পুঁজি পাঁচার করে এবং যারা শ্রমিকদের প্রাপ্য মজুরি আত্মসাৎ করে স¤পদের পাহাড় গড়েছে। তাদের উন্নয়ন কোটি কোটি শ্রমিকদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। স¦াস্থ্য চিকিৎসা শিক্ষা আবাসন ও রেশনিং অধিকার এবং মজুরি প্রতিষ্ঠা না হলে সরকারের উন্নয়নে শ্রমিকদের পেট ভরবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *