ক্ষমতা,স্বাধীনতা আর গণতন্ত্র এক কথা নয়: মঈন খান

বিডি নিউজ আই ডেক্স :

সরকার গণতন্ত্র নির্বাসন দিয়ে তাদের অলিখিত বাকশালকে চিরস্থায়ী করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান।

শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ দলের নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

ক্ষমতা, স্বাধীনতা আর গণতন্ত্র এক কথা নয় উল্লেখ করে মঈন খান বলেন, এই সরকার মানুষের ভোটাধিকার বিসর্জন দিয়ে সন্ত্রাসের নির্বাচনের মাধ্যমে পুনরায় ক্ষমতায় এসেছে। এটা শুধু আমরা নয়, দুদিন আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের দু’জন সদস্য তাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছেন, বাংলাদেশে নির্বাচনের মাধ্যমে যে সরকার গঠন করেছে সে সরকার জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে না।

২০১৪ সালের নির্বাচনের বিএনপি অংশ না নিয়ে ভুল করেনি দাবি করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া বুঝতে পেরেছিলেন আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না। সেজন্য ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ না নেওয়া সঠিক ছিল।
খালেদা জিয়াকে বিএনপির প্রাণ ভোমরা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের পলিসি ছিল খালেদা জিয়াকে যেন তেন প্রকারে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দিতে পারলে বিএনপি ধ্বংস হয়ে যাবে। কিন্তু আমি বলে দিতে চাই, খালেদা জিয়া কেবল দেশের কোটি কোটি মানুষের নয়নের মণি নন, তিনি বিএনপির প্রাণভোমরা। সেজন্য তারা খালেদা জিয়াকে মিথ্যা রাজনৈতিক মামলা দিয়ে কারারুদ্ধ করে রেখেছে।

গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য মহিলা দলের অনেক দায়িত্ব আছে। আজ এখানে যে উপস্থিতি তা পর্যাপ্ত না। প্রতিদিন এক হাজার নারী নিয়ে মানববন্ধন করতে হবে। তাহলে

সরকার খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে বাধ্য হবে।
মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন, মহিলা দলের সাবেক সভাপতি নুরী আরা সাফা, মহিলা দলের যুগ্ম সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য জেবা আমিন খান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *