নদী দখলকারীরা নির্বাচন ও ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে অযোগ্য

বিডি নিউজ আই ডেক্স :

নদী দখল ও ভরাট সংক্রান্ত অভিযোগ যার বিরুদ্ধে পাওয়া যাবে তিনি দেশের কোনো ধরনের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। সেইসঙ্গে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রেও অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন তিনি। আর এসব বিষয় তদারকি করবে নদী রক্ষা কমিশন। এ ছাড়া ঢাকার অদূরের তুরাগ নদকে ‘জীবন্ত সত্তা’ঘোষণা করা হয়।

রোববার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এই রায় দেন।

আদালত বলেন, কারো বিরুদ্ধে নদী দখলের অভিযোগ পাওয়া গেলে তাকে দেশের সকল নির্বাচনের অযোগ্য ঘোষণা করা হবে। আর এই অভিযোগটি তদারকি করবে নদী রক্ষা কিমশন।

এর আগে ২০১৬ সালের ৯ জানুয়ারি ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দখলকৃত তুরাগ নদ উদ্ধারে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুল জারি করেন আদালত। পরে ২০১৭ সালের ৫ জানুয়ারি বিআইডব্লিউটিএ তুরাগ উদ্ধারের পদক্ষেপ বিষয়ে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করে। পরে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করার জন্য গাজীপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

২০১৭ সালের ১১ অক্টোবর আদালতে জরিপ প্রতিবেদন দাখিল করেন চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। একই বছরের ১৩ ডিসেম্বর জরিপ অনুসারে তুরাগ নদীর জায়গা উদ্ধারে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

নদীর দখলকৃত ভূমি উচ্ছেদে আদালতের নির্দেশের বিরুদ্ধে কয়েক আপিল দায়ের করলে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ২০১৮ সালের ১৪ জানুয়ারি হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে রুল শুনানির আদেশ দেন।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী এবং বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের আদালতে রুল শুনানি শুরু হয়ে উভয় পক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। গত ৩০ জানুয়ারি রিটের রায় ঘোষণা শুরু হয়। বুধবার ও বৃহস্পতিবার আংশিক রায় ঘোষণা করার পর আজ রোববার অসমাপ্ত রায় ঘোষণা করা হলো।

এ ছাড়া নদী রক্ষা কমিশন যাতে নদ-নদী, খাল-বিল ও জলাশয় রক্ষায় কার্যকর ভূমিকা নিতে পারে, সেজন্য আইন সংশোধন করে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে সরকারকে।

রায়ে জলাশয় দখলকারী ও অবৈধ স্থাপনা নির্মাণকারীদের তালিকা প্রকাশ, স্যাটেলাইটের মাধ্যমে দেশের সব নদ-নদী, খাল-বিল ও জলাশয়ের ডিজিটাল ডেটাবেইজ তৈরি এবং সব শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও শিল্প-কারখানায় নিয়মিত সচেতনতামূলক কর্মসূচি নিতে বলা হয়েছে। ##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *