না’ঞ্জের ৫টি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৪৭ জন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়ার কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে আজ বুধবার (২৮ নভেম্বর) বিকেল পৌনে ৬টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের ৪৭ জন প্রার্থী। বুধবার শেষ দিনে উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র জমা দেন ৪০ জন প্রার্থী। এর আগে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন।

নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির, জাতীয় পার্টি দলীয় প্রার্থী আজম খান, জাকের পার্টির মাহফুজুর রহমানসহ ৪ জন।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, সিপিবির হাফিজুল ইসলাম, জাকের পার্টির মুরাদ হোসেন জামাল, স্বতন্ত্র আবু হানিফ হৃদয়সহ ৬ জন।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আজাহারুল ইসলাম মান্নান, জাকের পার্টির মোস্তফা আমির ফয়সাল, জাকের পার্টির মুরাদ হোসেন জামাল, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম, ইসলামী ঐক্যফ্রন্টের এএনএম ফখরুদ্দিন, কল্যাণ পার্টির রাশেদ ফেরদৌস সোহেল মোল্লাসহ ৮ জন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শাহআলম ও অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের নেতা কাউসার আহাম্মেদ পলাশ, জাতীয় পার্টির প্রার্থী সালাউদ্দিন খোকা মোল্লা, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের প্রার্থী মুফতী মনির হোসেন কাসেমী, বাসদের সেলিম মাহমুদ, সিপিবির ইকবাল হোসেন, কৃষক শ্রমিক জনতালীগের শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, স্বতন্ত্র প্রার্থী দলীয় সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিনের পুত্র জিএম কায়সারসহ ১৬ জন।

নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর ও বন্দর) আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সাবেক এমপি এস এম আকরাম, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, সিপিবির অ্যাডভোকেট মন্টুঘোষ, বাসদের আবু নাঈম খান বিপ্লব, ইসলামী ঐক্যফ্রন্টের বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী, জাকের পার্টির মোর্শেদ হাসান জামালসহ ১৩ জন।
এদিকে শেষ দিনে মনোনয়নপত্র জমাদানকালে ছিল আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক। প্রতিজন প্রার্থীর সঙ্গে প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীসহ ৭ জন নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলনক্ষে প্রবেশ করার কথা থাকলেও প্রার্থীদের সঙ্গে উপস্থিত ছিল অসংখ্য নেতাকর্মী।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া বলেন, দেখা গেছে একইসঙ্গে একাধিক প্রার্থী ভেতরে প্রবেশ করায় অনেক লোকের সমাগম দেখা গেছে। যেকারণে কিছুটা বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছিল। তবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশেই মনোনয়নপত্র দাখিল সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ২ ডিসেম্বর প্রার্থীদের বাছাই অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *