নেপালি রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ

নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ড. চোপ লাল ভূশাল আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কার্যালয়ে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় তার সঙ্গে স্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন।

ড. ভূশাল তার দায়িত্ব পালনকালে সহযোগিতার জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং তার সরকারের প্রতি ধন্যবাদ জানান। বিশেষ করে তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং বাণিজ্যমন্ত্রীর সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।
বৈঠকের পরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, বৈঠকে তারা পারস্পরিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে, বিশেষ করে জলবিদ্যুৎ এবং যোগাযোগ খাতে সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, তার দেশ বাংলাদেশে জলবিদ্যুৎ রফতানিতে আগ্রহী।

তিনি আরও বলেন, আসন্ন ব্যবসায়িক সম্মেলনে নেপাল থেকে বাংলাদেশের ৫শ’ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়টি প্রাধান্য পাবে।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেপালকে বাংলাদেশের সৈয়দপুর বিমান বন্দর ব্যবহার করতে দেয়ার প্রস্তাব পুনরুত্থাপন করেন। কেননা এটি ইতোমধ্যেই আঞ্চলিক বিমানবন্দর হিসেবে তৈরি করা হয়েছে এবং পূর্ব নেপাল থেকে আকাশ পথে বিমানবন্দরটির দূরত্ব মাত্র ২০ মিনিটের পথ।

সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ, ভূটান, ভারত এবং নেপাল এই অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নয়নের লক্ষ্যে সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

তিনি বিবিআইএন চুক্তির বাস্তবায়ন এবং বিদ্যমান ভিসা জটিলতা নিরসনের ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

নেপালের রাষ্ট্রদূত এ সময় বাংলাদেশে অধ্যয়নরত প্রায় ৪ হাজার নেপালী শিক্ষার্থীর জন্য ক্ষণস্থায়ী অনুমতির পরিবর্তে পূর্ণ মেয়াদের ভিসা প্রদানের অনুরোধ জানান।

শেখ হাসিনাকে এই অঞ্চলের নেতা আখ্যায়িত করে নেপালের রাষ্ট্রদূত আশা প্রকাশ করেন, তার দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক বর্তমান সরকারের মেয়াদে আরও শক্তিশালী হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *