ভুল প্রশ্নপত্রের পরীক্ষার্থীদের খাতা ভিন্নভাবে দেখা হবে : সংসদে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

বিডি নিউজ আই ডেক্স :

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, এসএসসি পরীক্ষায় যে নিয়মিত ছাত্র-ছাত্রীরা অনিয়মিতদের প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে, তাদের খাতা একদম ভিন্নভাবে দেখা হবে। যেন তারা কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হন।

রোববার সংসদে প্রশ্নোত্তরে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নুর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এর আগে বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যাদের ভুলের কারণে এই ঘটনাটি ঘটেছে তাদেরকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে এবং তদন্ত কমিটি করে দেয়া হয়েছে। তদন্তের ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার এসএসসির বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষায় চট্টগ্রাম, জামালপুর, নওগাঁ, শেরপুর, সাতক্ষীরা, মুন্সীগঞ্জ, গাইবান্ধা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বাগেরহাট ও মাদারীপুরে মোট ১৮টি কেন্দ্রে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের ভুল প্রশ্নপত্র দেয়া হয়। এসব প্রশ্নপত্র ছিল পুরোনো সিলেবাসের ভিত্তিতে অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের জন্য। এ ঘটনায় কোথাও কোথাও প্রশ্নপত্র পরিবর্তন করে পরীক্ষা নেয়া হলেও কোথাও কোথাও ভুল প্রশ্নপত্রেই পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

সম্পূরক প্রশ্নে মুজিবুল হক চুন্নু জানতে চান, গত ২ ফেব্রুয়ারি এসএসসি পরীক্ষায় দেশের কয়েকটি স্থানে নিয়মিত ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অনিযমিত শিক্ষার্থীদের প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা নেয়ার ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে যাদের ভুলে ঘটনাটি ঘটলো তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং পরীক্ষার্থীদের বিষয়ে কী বিবেচনা করা হবে?

জবাবে ডা. দীপু মনি বলেন, ‘প্রশ্নপত্র যখন যায় তখন নিয়মিতদের জন্য এবং অনিয়মিতদের জন্য আলাদাভাবে যায়। নির্দেশনা থাকে নিয়মিত এবং অনিয়মিতরা ভিন্ন জায়গায় বসবেন যাতে সহজেই তাদের জন্য যে প্রশ্নটি সেটি দেয়া যায়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দেখা গেছে যে, যে কেন্দ্রগুলোতে সমস্যা হয়েছে সেখানে কেন্দ্র সচিবদের ভুলের কারণে কিংবা সেখানে সংশ্লিষ্ট আরো যারা ছিলেন কেন্দ্রের কক্ষে যারা থাকেন তাদের ভুলের কারণে কোথাও কোথাও ঘটনাটি ঘটেছে। আমরা ইতোমধ্যেই সেই কেন্দ্রগুলো চিহ্নিত করে যাদের এই সমস্যা হয়েছে। যারা নিয়মিত পরীক্ষার্থী কিন্তু অনিয়মিতদের প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছেন তাদেরকে চিহ্নিত করা হয়েছে। কাজেই তাদের খাতা একদম ভিন্নভাবেই সেটি দেখা হবে। যেন তারা কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হন।’

‘আর দ্বিতীয়টি হচ্ছে যাদের ভুলের কারণে ঘটনাটি ঘটেছে ইতোমধ্যেই তাদেরকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে এবং তদন্ত কমিটি করে দেয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা তদন্তের প্রতিবেদন সাপেক্ষে গ্রহণ করা হবে।’

জাতীয় পার্টির অপর সদস্য ফখরুল ইমাম ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের খাতা ভিন্নভাবে দেখার বিষয়েটিকে অনৈতিক আখ্যায়িত করে নতুন করে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে মন্ত্রীর কাছে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘যেই সিলেবাসটি ভিন্ন সেই সিলেবাসের বিষয় কিন্তু ভিন্ন নয়। একই বিষয় সিলেবাসে খানিকটা ভিন্নতা আছে। কাজেই সেই প্রশ্নের মধ্যে প্রতিটি প্রশ্নই তার সিলেবাসের বাইরের না। খুবই অল্প জায়গায় ভিন্নতা আছে। পুরোটা ভিন্ন বিষয় নয়। তার থেকেও বড় কথা হলো যেখানে ভুলটি ঘটেছে সেখানে আপনার কাছে ক্ষতিপূরণ কী আছে? এক হতে পারে এই পরীক্ষাটি যারা দিতে পারলেন না তা বাতিল করে দিয়ে আবার একটি পরীক্ষা নিতে হবে। সেই ক্ষেত্রেওতো অন্য যারা পরীক্ষা দিলো সেই একই প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে পারছেন না। কারণ সেই প্রশ্নেতো ইতিমধ্যেই পরীক্ষা হয়ে গেছে। তাহলে ভিন্ন একটি প্রশ্নে তাদের পরীক্ষা দিতে হবে। সেখানেও কিন্তু আপনি সমান মানদণ্ড ব্যবহার করতে পারছেন না।’

‘এছাড়া আপনাদের কাছে যদি যুক্তিযুক্ত একই মানদণ্ড বজায় রেখে আরেকটি সুযোগ আছে কিনা, যদি আরও ভালো কোনো পরামর্শ থাকে দয়া করে দেবেন। আমরা অবশ্যই সেটি বিবেচনা করবো। কিন্তু যে বাস্তবতা সবচেয়ে ভালো যে সমাধান সেটিই আমরা বেছে নেয়ার চেষ্টা করেছি।’ জানান শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *