সাহিত্য দিগন্ত কবিতা উৎসব অনুষ্ঠিত

বিডি নিউজ আই ডেস্ক: গত ১৯ জুলাই ২০১৯ ইং তারিখে ঢাকার কাঁটাবনস্থ দীপনপুরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘সাহিত্য দিগন্ত কবিতা উৎসব-২০১৯’ এবং দৈনিক বাঙ্গালীর কণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮-১৯’ এর একটি জমজমাট অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে ঢাকা এবং দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত রেজিস্ট্রেশনকৃত ২৩৪ জন কবি-লেখক এবং সাহিত্যানুরাগী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সবাই স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে অংশগ্রহণ করেন, কবিতাপাঠ করেন এবং আড্ডায় অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অংশগ্রহণকারীদের উপহারস্বরূপ দেয়া হয় সম্মাননা সনদ, আইডি কার্ড, পলো শার্ট, লাভ ক্যান্ডি এবং ফুল। সবার জন্য ছিলো নাস্তার ব্যাবস্থা। পুরস্কারপ্রাপ্ত সম্মানিত লেখকদের দেয়া হয় ক্রেস্ট, সম্মাননা সনদ, সহ আরো অনেক উপহার সামগ্রী। অনুষ্ঠানে আগত কবিরা কবিতাপাঠ করেন এবং তাদের কবি হয়ে উঠার গল্প শুনান। কবিতাপাঠ ছাড়াও আয়োজন করা হয়েছিলো দুই কবির জন্মদিনের অনুষ্ঠান এবং এক কবি দম্পতীর বিবাহবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে আরও ছিলো গান এবং আলোচন, বক্তৃতা।

অনুষ্ঠানটিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমি এর মহাপরিচালক, একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

আরও উপস্থিত ছিলেন,
❑ কাজী রোজী (প্রাক্তন সংসদ সদস্য এবং বাংলা একাডেমি পুরাস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য কবি)
❑ আসলাম সানী (বাংলা একাডেমি পুরাস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য কবি)

❑ সৈয়দ আল ফারুক (কবি, শিশুসাহিত্যিক, সভাপতি-শিশুসাহিত্য পরিষদ)
❑ গোলাম কিবরিয়া পিনু (কবি, গবেষক, প্রাবন্ধিক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক-জাতীয় কবিতা পরিষদ)
❑ শ্যামসুন্দর শিকদার (কবি, সচিব-বাংলাদেশ সরকার)
❑ রেজাউদ্দিন স্ট্যালিন (বাংলা একাডেমি পুরাস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য কবি)
❑ ড. শোয়াইব জিবরান (কবি, লেখক, গবেষক, শিক্ষাবিদ)
❑ ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু (কবি,আবৃত্তিকার, উপ-পরিচালক-বাংলা একাডেমি)
❑ কানাই সরকার (গ্রুপ পরিচালক, মডেল গ্রুপ অব কোম্পানিজ)

সভাপতিত্ব করেনঃ
❑ ফরিদুজ্জামান (কবি, প্রাবন্ধিক, প্রধান সম্পাদক-ত্রৈমাসিক সাহিত্য দিগন্ত, জেনারেল ম্যানেজার (প্ল্যানিং) পেট্রো বাংলা)

দৈনিক বাঙ্গালীর কণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮ পেলেন যারাঃ

❑ তামান্না সেতু (গ্রন্থের নাম, সে রাতে আমিও মেঘ হয়েছিলাম)
❑ ড. আশরাফ পিন্টু (গ্রন্থের নাম, বাংলাদেশের প্রবাদে সমাজজীবন)
❑ ড. বাকী বিল্লাহ বিকুল (গ্রন্থের নাম, বাংলা উপন্যাসে নদী সমাজ ও শ্রমজীবী মানুষ)
❑ রহিমা আক্তার মৌ (গ্রন্থের নাম, গল্পের আয়নায় মানুষের মুখ)
❑ আশরাফুল মোসাদ্দেক (গ্রন্থের নাম, নয় দরজা)
❑ অর্ণব আশিক (গ্রন্থের নাম, চুম্বনে ভাসা আমার এ শহর)
❑ মাহবুবা ফারুক (গ্রন্থের নাম, টুকরো করলে নেবোনা আকাশ)
❑ প্রত্যয় হামিদ (গ্রন্থের নাম, স্পর্শ ও প্রেমের পদাবলী)
❑ রাফিউদ্দিন রাফি (গ্রন্থের নাম, নিঃশব্দ শব্দাবলী)
❑ হাসনাত আমজাদ (গ্রন্থের নাম, একটি লিচু ও অন্যান্য গল্প)

দৈনিক বাঙ্গালীর কণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৯ পেলেন যারাঃ

❑ মোস্তফা মনন (গ্রন্থের নাম, অক্ষর)
❑ জিয়াউল হক (গ্রন্থের নাম, শত মুক্তিযোদ্ধার বিজয়গাথা)
❑ শাহমুব জুয়েল (গ্রন্থের নাম, কথাসাহিত্যে রাজনৈতিক দর্শন ও বিবিধ প্রবন্ধ)
❑ ড. গাজী রহমান (গ্রন্থের নাম, শিক্ষাবিদ)
❑ ফজলুল হক সিদ্দিকী (গ্রন্থের নাম, গীতিকার)
❑ শাহীন রেজা (গ্রন্থের নাম, বৃষ্টি আকাশ এবং একটি দুপুরের গল্প)
❑ পরিতোষ হালদার (গ্রন্থের নাম, নৈঃশব্দ্যের জলতৃষ্ণা)
❑ হাবিবা বেগম (গ্রন্থের নাম, রোদের চোখ)
❑ তৌফিক জহুর (গ্রন্থের নাম, পাখি বিক্রি কাহিনি)
❑ অরবিন্দ চক্রবর্তী (গ্রন্থের নাম, রাত্ররি রঙ ববিাহ)
❑ রহমান মুজিব (গ্রন্থের নাম, বুকের বামে সোনার গাঁ)
❑ তাহমিনা বেগম (গ্রন্থের নাম, তুমি আসবে বলে)
❑ মাসুমা টফি একা (গ্রন্থের নাম, শুভ্রর বন্ধু পুটয়িা কুমার)
❑ রহীম শাহ (গ্রন্থের নাম, মজার ছড়া)

জাহাঙ্গীর হোসেন কবির এবং কালাচাঁদ চক্রবর্তী এর পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানটির সমন্বয়কারী ছিলেন কবি নুরুন নাহার শ্রাবনী এবং ফারহানা সোনালী। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালক ছিলেন, ড. শামস আলদীন, মুনমুন খান, ফারজানা ইসলাম, হাবিবা মুসতারিন, নাহিদা পাঠান তুহিন এবং জায়েদ হোসাইন লাকী।

‘সাহিত্য দিগন্ত কবিতা উৎসব-২০১৯’ এবং বাঙ্গালীর কণ্ঠ সাহিত্য পুরস্কার ২০১৮-১৯’ এর আয়োজক ছিলেন যথাক্রমেঃ

❑ জায়েদ হোসাইন লাকী (কবি, কথাসাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক, চিত্রপরিচালক, প্রযোজক, সংবাদ উপস্থাপক, সম্পাদক-ত্রৈমাসিক সাহিত্য দিগন্ত, উপদেষ্টা সম্পাদক-দৈনিক বাঙ্গালীর কণ্ঠ)
এবং
❑ শফিউল আজম (প্রধান সম্পাদক-দৈনিক বাঙ্গালীর কণ্ঠ, সম্পাদক-সাপ্তাহিক অপরাধ সূত্র)

অনুষ্ঠানটি দুপুর দুই ঘটিকায় শুরু হয়ে এক টানা রাত নয় ঘটিকা পর্যন্ত চলে। অনুষ্ঠানে আগত সকল কবি-সাহিত্যিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে এবং ভবিষ্যতে এরকম আরও অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে বলে জানিয়ে সভাপতির বক্তৃতার মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *