না’গঞ্জ তিনটি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামীলীগ

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ ১, ২ ও ৪ এই তিনটি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামীলীগ। তিন আসনেই বর্তমান সাংসদদের আওয়ামীলীগের প্রার্থীতা দেয়া হয়েছে। বাকি দুইটি আসন খালি রাখা হয়েছে মহাজোটের প্রার্থীর জন্য। কিন্তু প্রার্থী ঘোষণা হয়ে গেলেও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের কোন নির্বাচনী প্রস্তুতি চোখে পড়ছে না। এমনকি কোন আনন্দ মিছিল বা উচ্ছাস প্রকাশ করতেও দেখা যায়নি জেলা আওয়ামীলীগকে। তাছাড়া এখনও গঠিত হয়নি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। তবে আওয়ামীলীগের নেতারা বলছেন, প্রার্থীদের চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার পরই তারা মাঠে নামবেন।

রোববার (২৫ নভেম্বর) নারায়ণগঞ্জের তিনটি আসনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী চুড়ান্ত করে। এরমধ্যে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক), নারায়ণগঞ্জ-২ আসনে নজরুল ইসলাম বাবু ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে একেএম শামীম ওসমান। তফসিল অনুযায়ী, ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর প্রচারণা শুরু করতে পারবেন প্রার্থীরা। তবে প্রার্থীর প্রচারণার ক্ষেত্রে দলীয় ভূমিকা থাকবে অন্যতম। নির্বাচন পরিচালনার জন্য থাকবে দলীয় একটি পরিচালনা কমিটি। এই কমিটি দলীয় প্রার্থীদের প্রচারণায় সহযোগিতা করবে, দলের উন্নয়ণ ও ভালো দিকগুলো তুলে ধরবে। কিন্তু দল থেকে এখন পর্যন্ত নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করতে পারেনি। তারা অপেক্ষা করছেন দলের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের জন্য। চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হবার পরই নির্বাচন পরিচালনা কমিটির বিষয়ে আলোচনায় বসবেন তারা।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, ‘এখনো নির্বাচন পরিচালনা কমিটি কিংবা কেন্দ্র পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়নি। তবে আমাদের এ বিষয়ে কথাবার্তা চলছে। আমরা এ নিয়ে মিটিংয়ে বসবো।’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রার্থীদের তালিকা তো এখনো চূড়ান্তভাবে প্রকাশ করা হয়নি। জোট-মহাজোটেরও একটা ব্যাপার রয়েছে। প্রার্থী চূড়ান্ত হোক তখন নির্বাচনী মাঠে নেমে যাবে আওয়ামীলীগ।’

জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল বলেন, ‘নির্বাচনী প্রস্তুতি তো আমাদের অনেক আগের থেকেই। আমরা বিভিন্ন স্থানে নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছি। আমরা সকলেই দলীয় প্রার্থী ঘোষণার অপেক্ষায় ছিলাম। ইতিমধ্যে ৩টি আসনে দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়ন সম্বলিত চিঠি পাঠানো হয়েছে। সে অনুযায়ী আমাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি যথার্থ। তবে এখনো কোন কমিটি গঠন করা হয়নি। আমরা এ নিয়ে আলোচনা করছি। নির্বাচন নিয়ে আমাদের নানা চিন্তা-ভাবনা রয়েছে।’

নির্বাচন কমিশনের পুনঃতফসিল অনুযায়ী আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৮ নভেম্বর, মনোনয়ন বাছাই ২ ডিসেম্বর, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বর এবং ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচার শুরু করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *