ভারতের মেঘালয়ে চার শিশুসহ আটক ১১ বাংলাদেশি

অবৈধ অনুপ্রবেশর অভিযোগে ভারতের মেঘালয় থেকে ১১ বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে দেশটির সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। এদের মধ্যে চারটি শিশুও রয়েছে। মানব পাচারের অভিযোগ গ্রেফতার করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের এক বাসিন্দাকেও।

বৃহস্পতিবার মেঘালয়ের সাউথ গারো হিলস জেলার সদর শহর বাগমারা এবং ওয়েষ্ট গারো হিলস জেলার সদর শহর তুরার মধ্যবর্তী ৬২ নম্বর জাতীয় সড়কে রুটিন টহলদারির সময় একটি গাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্তের অরক্ষিত সীমানার সুযোগ নিয়ে তারা ভারতে প্রবেশ করেছে বলে অভিযোগ এবং তাদেরকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করে এদেশে স্থায়ীভাবে বসবাসের উদ্দেশ্য ছিল বলেও জানা গেছে।
জেলার পুলিশ সুপার আব্রাহাম টি. সাংমা সংবাদমাধ্যমকে জানান, আমরা সাতজন বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছি, তাদের সাথে ২ থেকে ৫ বছর বয়সী চারটি শিশুও ছিল। ভারতে প্রবেশের সময়ই বিএসএফ তাদের আটক করে পরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

বিএসএফ’এর মুখাপাত্র ইউ.কে.ন্যায়াল জানান, বাংলাদেশি নাগরিকরা আন্তর্জাতিক সীমান্ত সংলগ্ন নেত্রকোণা এবং সুনামগঞ্জ জেলার বাসিন্দা এবং পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার যাওয়ার জন্যই তারা সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করে।

গ্রেফতার হওয়া সাত প্রাপ্ত বয়স্ক বাংলাদেশি নাগরিকরা হলেন নির্মল সরকার (৩৪), স্বপন বর্মন (৩৩), কবি রঞ্জন দে (২৫), সুমা সরকার (২৫), প্রণয় দে (২৩), নুপুর তালুকদার (২২), কানা রাই (২০)। তাদের কাছ থেকে ৮ হাজার বাংলাদেশি টাকা ও ৪৭ হাজার রুপি উদ্ধার করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে ওই বিএসএফ কর্মকর্তা এও জানান, বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সেদেশে একটা উত্তেজনা বিরাজ করছে। এই পরিস্থিতিতে সংখ্যালঘু হিন্দুরা নিরাপত্তার অভাব বোধ করে ভারতে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে অবৈধভাবে প্রবেশ করার চেষ্টা করছে।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, মনমোহন মজুমদার নামে কোচবিহার জেলার কোতোয়ালি পুলিশ থানার অধীন কালারায়কুঠি গ্রামের এক বাসিন্দাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। সে জানিয়েছে যে এক সপ্তাহ আগেই তিনি বাংলাদেশ যায় এবং সেখানেই নেত্রকোনার বাসিন্দা সুকুমার দয়াল হাজং নামে এক ব্যক্তির মাধ্যমে ওই বাংলাদেশি নাগরিকদের সাথে যোগাযোগ করে এবং ভারতে নিয়ে আসার ব্যাপারে সহায়তা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *