বিশ্বমিডিয়ায় শেখ হাসিনার বিজয়

ঢাকা: অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ফলাফল ঘোষণাও শেষ। তবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পঞ্চমবারের মতো এবং টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগের সরকার গঠন ইতিমধ্যে নিশ্চিত হয়েছে। দেশীয় গণমাধ্যমগুলোর পাশাপাশি প্রভাবশালী এবং সুপরিচিত আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমেও প্রধান শিরোনামে স্থান পেয়েছে শেখ হাসিনার বিজয়ের খবর। বিশ্ব গণমাধ্যমের নানান সংবাদে উঠে এসেছে বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, আওয়ামী লীগের বিশাল ব্যবধানে বিজয়, সহিংসতা এবং ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচন বর্জনের সংবাদ। বিশ্বের নেতৃত্বস্থানীয় গণমাধ্যগুলো শেখ হাসিনার রেকর্ড ৪ বার প্রধানমন্ত্রী হবার সংবাদের সঙ্গে সঙ্গে সহিংসতায় একাধিক তাজা প্রাণ ঝড়ে যাবার কথা তুলে ধরেছে।

রোববার (৩০ ডিসেম্বর) ভোট গ্রহণের দিনের শুরু থেকেই আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম এবং বার্তা সংস্থাগুলোতে গুরুত্ব সহকারে প্রকাশিত হতে থাকে বাংলাদেশের নির্বাচনের খবর। এদিন সন্ধ্যার পর থেকে নির্বাচনের বিভিন্ন আসন ও কেন্দ্রের ফলাফল আসতে শুরু করলে সেগুলোও প্রকাশ করে বেশকিছু গণমাধ্যম। রোববার রাতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এবং তাদের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বিজয় এক প্রকার নিশ্চিত হলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর প্রধান শিরোনামে প্রকাশিত হতে থাকে এ সংবাদ।

অর্থনীতি বিষয়ক প্রভাবশালী দৈনিক ফাইনানশিয়াল টাইমস শিরোনামে বলেছে, বাংলাদেশে জালিয়াতির অভিযোগের মধ্যে নির্বাচনে বিজয়ী ক্ষমতাশীন দল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভোট প্রদানের ছবি দিয়ে ফরাসী সংবাদ সংস্থা এফপির শিরোনাম, বাংলাদেশের নির্বাচনের আগাম ফলাফলে শেখ হাসিনার বিশাল জয়। নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ করে সিএনএন এর শিরোনাম, বাংলাদেশে নির্বাচন সহিংসতায় পরিণত হয়ে অন্তত ১৫ জন নিহত।

ব্রিটিশ সরকারি গণমাধ্যম গুরুত্ব দিয়েছে ঐক্যফ্রন্টের ফলাফল বর্জনের আহ্বানকে। তাদের শিরোনাম, নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের বিরোধী দল। আরেক ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ানের কথাতেও একই সুর। গার্ডিয়ান বলছে, ‘প্রহসনের নির্বাচন’ প্রত্যাখান করে নতুন ভোট দাবি বাংলাদেশের বিরোধী দলের।

ভারতের অত্যন্ত প্রভাবশালী জি মিডিয়ার সংবাদমাধ্যম ইয়ন বলছে, বাংলাদেশ নির্বাচন: প্রধানমন্ত্রী হাসিনা রেকর্ড চতুর্থ দফা জয়ের পথে; বিরোধী দলের নির্বাচন প্রত্যাখান, নতুন ভোট দাবি। ভারতের অত্যন্ত প্রভাবশালী দৈনিক দ্য হিন্দুর শিরোনাম, বাংলাদেশের রক্তক্ষয়ী নির্বাচনে শেখ হাসিনার ভূমিধ্বস জয়।

চ্যানেল নিউজ এশিয়া বলছে, নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগে বহু বিরোধীদলীয় প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন। আল জাজিরার শিরোনাম, বিরোধীদলের প্রত্যাখাত নির্বাচনে হাসিনার জয়। আর রয়টার্সের শিরোনাম, জালিয়াতির অভিযোগে বিরোধী দলের প্রত্যাখানের পর বাংলাদেশী প্রধানমন্ত্রীর বিশাল জয়।

কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রধান শিরোনামে শেখ হাসিনার বিজয় নিয়ে লেখা হয়- হাসিনা ‘বাংলাদেশ নির্বাচন জিতেছে’ যেখানে বিরোধীরা ভোট প্রত্যাখ্যান করে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সে প্রকাশিত খবরের শিরোনাম হলো- শেখ হাসিনার বিজয় সুরক্ষিত যেখানে পুনঃনির্বাচনের দাবি বিরোধীদের।

ভারতের এনডিটি এবং জি নিউজ বেশ গুরুত্ব সহকারে শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের বিজয়ের খবর পরিবেশন করে। দুইটি গণমাধ্যমের ওয়েবসাইটেই শেখ হাসিনার ‘বিজয় চিহ্ন’ সম্বলিত ছবি প্রকাশি হয়। স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে লেখা খবরে এনডিটির শিরোনাম ছিলো- নির্বাচন জয় শেখ হাসিনার। জি নিউজের খবরের শিরোনাম ছিলো- শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার পথে; পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি বিরোধীদের।

শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের বিজয়ের খবর প্রকাশিত করলেও নির্বাচনী সহিংসতা এবং বিরোধী পক্ষের ভোট বর্জন বা পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি উঠে আসে বিবিসি এবং দ্য গার্ডিয়ানের মতো সংবাদ মাধ্যমে। ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং করপোরেশন বিবিসির শিরোনাম হলো- পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি বাংলাদেশের বিরোধীদের। শিরোনামটির ‘কলার’ অংশে লেখা হয়- এক বিরোধী নেতা নির্বাচনকে ‘প্রহসনের নির্বাচন’ আখ্যায়িত করে সমালোচনা করেন। অন্যদিকে দ্য গার্ডিয়ানের শিরোনাম ছিলো- ‘হাস্যকর’ বলে নির্বাচন বয়কট, পুনঃভোটের দাবি (বিরোধীদের)।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ের খবর প্রকাশিত হয়েছে পাকিস্তানের প্রভাবশালী দৈনিক দ্য ডন এও। শিরোনামে না এলেও টেকনিক্যাল লিড হিসেবে প্রকাশিত সংবাদের শিরোনাম ছিলো- বাংলাদেশের শেখ হাসিনার নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত; পুনঃনির্বাচনের দাবি বিরোধীদের।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ফলাফলে ২৯৮টি আসনের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ২৫৯টি আসন, জাতীয় পার্টি ২০টি আসন, বিকল্পধারা বাংলাদেশ ২টি আসন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ৩টি আসন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ ২টি আসন, তরিকত ফেডারেশন ১টি এবং জাতীয় পার্টি-জেপি ১টি আসন পেয়েছে। অন্যদিকে বিএনপি ৫টি আসন ও গণফোরাম ২টি আসনে বিজয়ী হয়েছে। এছাড়াও স্বতন্ত্র ৩ জন প্রার্থী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয় পেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *